কখন মেয়েরা যৌনমিলনের জন্য পাগল হয়ে যায়

আপনাদের স্বাগতম জানাচ্ছি যৌন স্বাস্থ্য বিষয়ক বিভিন্ন বিষয় নিয়ে আলোচনা করবো আজকে । আজকে যে বিষয় নিয়ে আলোচনা করব সেটা হল দিনের কখন মেয়েরা যৌনমিলনের জন্য পাগল হয়ে যায় |


যৌনমিলনের কোন সময়টা যৌনতার জন্য আদর্শ তা নিয়ে নানা জনের নানা মত বহুকাল আগে কামসুত্র বলা হয়েছিল যে যৌন সম্ভোগের আদর্শ সময় হলো দুপুরবেলা । তখনই নাকি দেহের রতিক্রিয়া সর্বোচ্চ শিখরে থাকে, অনেক প্রাচীন সভ্যতার নারী পুরুষের মিলনের আদর্শ সময় ধরা হয়েছে দুপুর বেলা।


একটি গবেষণায় বলা হয়েছে যে যৌন মিলন করার ইচ্ছা নারী পুরুষের শরীরে আলাদা আলাদা সময় জাগে নারীর প্রিয় সময় হল রাত বেলা। তবে অধিকাংশ ক্ষেত্রে দেখা গিয়েছে যৌনমিলনের ক্ষেত্রে পুরুষেরা পছন্দ নয় রাত কারন সারাদিনের খাটুনির পর রাতেই তারা ঘুমাতে চায়। ভোর হলে ঘুম থেকে উঠে সিংহের শক্তি নিয়ে জেগে উঠে। নারী ক্ষেতে ব্যাপারটা সম্পূর্ণ আলাদা রাতের আধারে পুরুষ সঙ্গী তাকে যৌনসুখ দিয়ে পাগল করে দিক সেটাই নারিরা চাই ।
তার জন্য বিবাহিত মহিলারা এত সাজুগুজু করে রাতের বেলা কিন্তু নারী পুরুষের ক্ষেত্রে এই বিভেদ কেন? এর জন্য দায়ী হরমোন। হরমোন কিভাবে মানুষের মিলনের ইচ্ছা কে নিয়ন্ত্রণ করে চলুন জেনে নেওয়া যাক।


ভোরের দিকে পুরুষের শরীরে টেস্টোস্টেরন হরমোনের মাত্রা সর্বাধিক থাকে, তাই পুরুষের পিটুইটারি গ্রন্থি চালু হয় ভোরের দিকে। তাই পুরুষ ভোরের দিকটা ভালো বাসে । নারীর ক্ষেত্রে ব্যাপারটা একেবারে উল্টো রাতে তাদের টেস্টোস্টেরন হরমোন কাজ করে সবচেয়ে বেশি এবং প্রজেস্টেরন হরমোনের মাত্রা বজায় রাখে ভোর ছয়টা।


সারা রাতের ভালো ঘুম যৌন মিলনের ফলে পুরুষের শরীরে বিভিন্ন গবেষণায় এটা প্রমাণিত হয়েছে যে ভালো ঘুম টেস্টোস্টেরনের মাত্রা বাড়াতে সহায়ক এই সময় নারীর যৌন হরমোনের মাত্রা সবচেয়ে কম থাকে, পুরুষের থাকে সবচেয়ে বেশি। তবে ঋতুস্রাবের কারণ এই হার কম বেশি হতে পারে। সকাল আটটা নানা কাজে ব্যস্ত হয়ে পড়ে নারী পুরুষ শরীরের স্ট্রেস হরমোনকে মাত্রা বেড়ে যায় এসময় নারী-পুরুষ উভয়েই যৌনতার জন্য খুব একটা আগ্রহ পায় না। প্রেম করার জন্য আদর্শ সময় হতে পারে কিন্তু যৌনতার জন্য নয়। মাথার ওপর স্ট্রেস থাকলে যৌন হরমোন তৈরি হতে চায় না কিন্তু মেঘলা দিন বৃষ্টি মুখর পরিবেশে যৌন মিলন করার জন্য নারী-পুরুষ উভয়ের মন ব্যাকুল হয়ে উঠতে পারে। বেলা একটা হলেই পুরুষের সঙ্গে যৌন কল্পনায় মেতে উঠতে চাইলে নারীর এটাই আদর্শ সময়। এই সময় নারীর শরীরে টেসটোসটেরন এর মাত্রা বাড়তে থাকে তবে পুরুষদের তেমন কিছুই হয় না। এই সময়ে পুরুষ শরীরের টেস্টোস্টেরন তৈরি হয় না বললেই চলে, তাই সুন্দরী দরজায় কড়া নাড়ে ও সর্বোচ্চ হাই-হ্যালো অথবা এক কাপ কফি বেলা থেকেই নারী শরীরে বাড়তে থাকে টেস্টোস্টেরনের মাত্রা সন্ধ্যা ছয়টার সময় তা ভালোই বানাতে মহিলা কিন্তু প্রস্তুত অপরদিকে পুরুষের টেস্টোস্টেরনের মাত্রা কমতে থাকে।


কিন্তু যে পুরুষ নিয়মিত ব্যায়াম করে সকাল-সন্ধ্যা তার টেস্টোস্টেরনের মাত্রা তখন বাড়তে থাকে সন্ধ্যা 7:00 টায় যে নারী গান শুনে তার যৌন হরমোন বৃদ্ধি পায় কিন্তু পুরুষের বেলায় তেমন কোন প্রভাব লক্ষ করা যায় না, এমনিতেই পুরুষের কাজের লোক পায় কিন্তু নারীর ধর্ম এমন অবস্থায় পুরুষ যদি রাজি না থাকে খুব মুশকিলে পড়তে হয় নারীকে রাত 9:00 সাধারণত দেখা গিয়েছে নারীর যৌন হরমোন এই সময় বৃদ্ধি পায় কিন্তু নারী যদি মনে করে তাকে দেখতে খারাপ দেখাচ্ছে তবে তার সব ইচ্ছা করে যায় রাত দশটা এই সময়ে পুরুষের টেস্টোস্টেরনের উৎপাদন না হলেও সে সঙ্গমের জন্য প্রস্তুত থাকে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *