চিকিৎসকরা বলছেন সবটাই উপসর্গ ভিত্তিক, চিকিৎসা যে ধরনের শারীরিক সমস্যার মধ্যে দিয়েও চিকিৎসাধীন রোগীর যাবেন সেইমতো চিকিৎসকরা তাদের চিকিৎসা পদ্ধতি বদলাতে বদলাতে এগিয়ে যাবেন । কেননা এখনো পর্যন্ত বিশ্বজুড়ে নোবেল কোন ভাইরাসের নির্দিষ্ট কোন চিকিৎসা পদ্ধতির নেই, তবে হ্যাঁ গতকালই আইসিএমআর তরফ থেকে একটা খুশির খবর দেওয়া হয়েছিল যে ভারতবর্ষে চিকিৎসকরা তারা একটা পরীক্ষামূলক চেষ্টা করেছিলেন ।

কোন ভাইরাস আক্রান্ত রোগীর যেখানে তাদের অন্য রোগের ওষুধ দেওয়া হয়েছিল একটা কম্বিনেশন প্রয়োগ করা হয়েছিল, সেখানে সফল হয়েছেন তারা এবং মৃত্যুর মুখ থেকে ফিরিয়ে আনতে পেরেছেন । এখন সেই পদ্ধতি আমাদের বেলেঘাটা আইডি হাসপাতালে কলকাতার প্রথম নোবেল করোনা ভাইরাস আক্রান্ত রোগীর ক্ষেত্রে প্রয়োগ করা হয় কিনা সেটা দেখার বিষয় থাকবে, তবে এখনো পর্যন্ত চিকিৎসকেরা বলছেন যে জ্বর কাশি শ্বাসকষ্ট যেমন সমস্যা সেইমতো চিকিৎসা পদ্ধতি পরিবর্তন করে যাবেন এবং গত 24 ঘন্টার মধ্যে আরও 10 জন রোগী বেলেঘাটা আইডি হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন,